Website

ব্যাকলিংক সম্পর্কে যত কিছু জেনে নিন এই পোস্টে!!!!

আসসালামু আলাইকুম! কেমন আছেন আপনারা আশা করি ভালো।

আজকে আমি আপনাদের সামনে আলোচনা করবো ব্যাকলিংক কি?কেন আপনি ব্যাকলিংক করবেন?ব্যাকলিংক কিভাবে আপনার ওয়েবসাইটে ভিসিটর আনতে সাহায্য করে?কিভাবে ব্যাকলিংক নিতে হয়??

তাহলে চলুন শুরু করি।

তাহলে চলুন আগে জেনে নেই ব্যাকলিংক কি?

আপনার হয়তো একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগিং
ওয়েবসাইট আছে। তানা হলে হয়তো আপনি এই আর্টিকেলটি পড়তে আসতেন না। আমরা যারা ওয়েবসাইট পরিচালোনা করি তাদের ব্যাকলিংক সম্পর্কে ধারণা থাকা দরকার।

ব্যাকলিংক বলতে আমরা সহজ ভাষায় বুঝি। আপনার ওয়েবসাইটের লিংক অন্য ওয়েবসাইটে থাকা। আপনার ওয়েবসাইটের লিংক অন্য ওয়েবসাইটে এমন ভাবে সেট করা যাতে ওই ওয়েবসাইট থেকে আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটর আসে। ব্যাকলিংক অনেক ভাবে করা যায় আজকে আমি একটি ভিন্ন উপায়ে আপনাদেরকে ব্যাকলিংক করানো শিখাবো।

কেন আপনি ব্যাকলিংক করবেন?

ব্লগিং করার জন্য আপনার ভিজিটরের দরকার আছে।আর এই ভিজিটর পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইটটি গুগোল র‍্যাংক করতে হবে। তা না হলে আপনি অর্গানিক ভিজিটর পাবেন না। আমরা যারা ব্লগিং করি তারা অবশ্যই ভিসিটর এর আশায় করে থাকি। একটি ব্লগার এর মূল উদ্দেশ্য হলো মানুষ কে ভালো কিছু শেখানো আর আপনি এইদিকে ভালো কিছু শিখাতে চাচ্ছেন কিন্তু অনেকই জানে না যে আপনি আপনার ওয়েবসাইটে ভালো কিছু শেখানোর জন্য কাজ করছেন। সেই সব মানুষ কে জানাতে ব্যাকলিংক কাজ করে। একটা উদাহরণ দেই আপনি ইসলামিক নানা বিষয়ে আপনার ওয়েবসাইট এ আর্টিকেল লিখে থাকেন মানুষকে জানানোর জন্য কিন্তু আপনি ভালো ভিসিটর পাচ্ছেন না। এ ক্ষেত্রে ভালো ইসলামিক সাইটে আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইট টি তুলে ধরেন তাহলে ওখান থেকে ভালো ভিসিটর পাবেন।
আর গুগলের সাইট র‍্যাংক করার জন্য অবশ্যই আপনাকে এসইও করতে হবে। আর ব্যাকলিংক এসইও এর একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। ব্যাকলিংক আপনার ওয়েবসাইট যতটা ভালো পারফরম্যান্স করবে আপনি ততটাই ভালো ভিসিটর পাবেন।

ব্যাকলিংক কিভাবে আপনার ওয়েবসাইটে ভিসিটর আনতে সাহায্য করে?

চলুন একটি সাধারণ উদাহরণ দিয়ে বিষয়টি বুঝি।

ধরুন একজন ব্যাক্তি একটি ওয়েবসাইট প্রতিদিন ভিসিট করে। ওই ওয়েবসাইট টি তে প্রতিদিন ভালো পরি মানে ভিসিটর আসে। এবং ওয়েবসাইট টি তে ইসলামিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়। আপনারো ওয়েবসাইটে ওই একই বিষয়ে আর্টিকেল লিখা হয়। আপনি যদি একটি ব্যাকলিংক ওই ওয়েবসাইটে সেট আপ দেন তাহলে ওখান থেকে আসা ভিসিটর টাও আপনার সাইটে ভিসিট করবে। এভাবে ব্যাক্লিংক থেকে ভিসিটর পাওয়া সম্ভব।
তাহলে অই ওয়েবসাইট টির মাধ্যমে আপনি আপনি আপনার ওয়েবসাইট টি কে তুলে ধরতে পারবেন। এতে সবাই আপনার ওয়েবসাইট টি কে চিনবে এবং আপনিও অর্গানিক ভিসিটর পাবেন।আশা করি বুঝতে পেরেছেন কিভাবে আপনি ব্যাকলিংক এর মাধ্যমে অর্গানিক ভিসিটর পাবেন।এবার চলুন জেনে নেই কিভাবে ব্যাকলিংক নিতে হয়।

কিভাবে ব্যাকলিংক নিতে হয়??

ব্যাকলিংক নিতে আপনাকে কিছু জিনিস ভালো ভাবে জানতে হবে। আপনি যদি ভালো কোনো যায়গা থেকে ব্যাকলিংক নিতে পারেন তাহলে আপনি ভালো পরি মানে ভিসিটর পাবেন।নিচের কিছু জিনিস আপনাকে ভালো ভাবে জানতে হবে।

  • আপনার ওয়েবসাইট টি যে বিষয় রিলেটেড সে বিষয়ের ওয়েবসাইট খুজতে হবে। যেমনঃ আপনার ওয়েবসাইট টি যদি ইসলামিক বিষয়ে হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে ইসলামিক ওয়েবসাইট খুজতে হবে।
  • সেই ওয়েবসাইট টি কে ভালো ভাবে কিছু দিন পরিদর্শন করা।
  • ওই ওয়েবসাইট টিএর সাইট স্পিড ইত্যাদি বিষয়ে ভালো ভাবে লক্ষ্য করা।

যখন আপনার একটি ওয়েবসাইট এর ওপর উল্লেখিত বিষয় গুলো চেক করা হয়ে যাবে তখন আপনি নিচে দেওয়া কিছু পদ্ধতির মাধ্যমে ব্যাকলিংক নিতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে আপনি শুধু একটি ওয়েবসাইট এর পিছনে পরে থাকলে হবে না। আপনি অন্য ওয়েবসাইট গুলো খুজতে থাকবেন। যেখানে আপনার ধারোনা ভালো পরিমানে ভিসিটর পাওয়া সম্ভব।

নিচে কয়েকটি পদ্ধতি অনুসরণ করে ব্যাকলিংক নিতে পারবেন।

  • প্রশ্ন উত্তর সাইট থেকে ব্যাকলিংক
  • ফ্রি আর্টিকেল লিখে ব্যাকলিংক
  • কমেন্ট করে ব্যাকলিংক
  • ওয়েবসাইট মালিকের সাথে যোগাযোগ করে ব্যাকলিংক

নিচে প্রত্যেক টি বিষয়ের বিশদ আলোচনা করা হলো

প্রশ্ন উত্তর সাইট থেকে ব্যাকলিংক : এখন ইন্টারনেট জগতে অনেক ওয়েবসাইট তৈরি হয়েছে যেখানে যে কেউ তাদের সমস্যা তুলে ধরে অনেকই এই সাইটের মাধ্যমে সমাধান দিয়ে থাকে। এই সব ওয়েবসাইট অনেক পপুলার হয়ে থাকে। এখানে অনেকে নানা রকম প্রশ্ন করে থাকে তাদের উত্তরের খোজে। আপনি যদি এখানে সেই উত্তর টি দিয়ে নিচে আপনার ওয়েবসাইট এর লিংক টি রেফারেন্স হিসেবে দেন তাহলে ভালো পরি মানে ভিসিটর পাবেন।

একটি উদাহরণ এর মাধ্যমে বুঝানো হলো : একজন ব্যাক্তি একটি জনপ্রিয় প্রশ্ন উত্তর সাইটে প্রশ্ন করলো ” সঠিক নিয়মে কিভাবে তাহাজ্জুদ নামাজ পরতে হয়??” আপনি এই প্রশ্ন টি যথাযথ উত্তর দিয়ে নিচে আপনি লিখে দিলেন ” বিষয়টি আরো ভালো ভাবে বুঝতে আমাদের সাইট টি ভিসিট করুন yoursitename.com ” এ ভাবে আপনি যদি উত্তর টি দেন তাহলে সেই ভিসিটর গুলা আপনি আপনার সাইট এ পেয়ে যাবেন।

এখন এই পদ্ধতির মাধ্যমে ব্যাকলিংক নেওয়া খুব সোজা এবং উপকারি।

ফ্রি আর্টিকেল লিখে ব্যাকলিংক : বর্তমানে অনেক ওয়েবসাইট আছে যারা আর্টিকেল রাইটার দের মাধ্যমে তাদের ওয়েবসাইট টি পরিচালনা করে থাকে। এখানে আপনি তাদের ওয়েবসাইট টে আর্টিকেল লিখে দিয়ে নিচে আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য ব্যাকলিংক হিসবে আপনার ওয়েবসাইট এর লিনংক দিলেন তাহলে সেখান থেকে আপনি ভালো ভিসিটর পাবেন। এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে আপনি ব্যাকলিংক নেওয়ার জন্য যে ওয়েবসাইট টি সিলেক্ট করবেন সেটি যেনো ভালো পপুলার হয় ভালো পরিমাণে ভিসিটর আসে সেই সাইটে।

কমেন্ট করে ব্যাকলিংক : আগে প্রচুর ব্যাকলিংক নেওয়া যেতো এই পদ্ধতি অনুসরণ করে। কিন্তু এখন অনেক ওয়েবসাইট তাদের ওয়েবসাইটে হওয়া কমেন্ট গুলা মোডারেট করে ফলে আর তারা এই লিংক যুক্ত কমেন্ট গুলা স্পাম হিসেবে আক্ষায়িত করে। এখন অল্প কিছু ওয়েবসাইট আছে যেখান থেকে কমেন্ট এর মাধ্যমে ব্যাক লিংক নেওয়া যেতা পারে। এখন যেহেতু এই পদ্ধতিতে ভালো ফলাফল পাওয়া যায় না সেহেতু আমাদের এই পদ্ধতি টি অনুসরণ না করাই ভালো।

ওয়েবসাইট মালিকের সাথে যোগাযোগ করে ব্যাকলিংকঃ ওয়েবসাইট এর মালিকের সাথে আপনাকে যোগাযোগ করে তাদের ওয়েবসাইট এ নিয়ে পারবেন আপনার ওয়েবসাইট জন্য এর ব্যাক্লিংক। তাদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য আপনাকে তাদের মেইল কালেক্ট করতে হবে। মেইল কালেক্ট করতে আপনাকে তাদের গুরুত্বপূর্ণ পেজ যেমন ঃ About us, Copyrights etc. পেজ গুলা ভিসিট করতে হবে। এতে কন্টাক্ট আস [Contact Us ] পেজ টি আপনাকে ভালোই সহজগিতা করবে। কিন্তু এভাবে ব্যাকলিংক নিতে হলে আপনাকে গুনতে হতে পারে কিছু অর্থ। তাছাড়া কোনো সার্থ ছাড়া তারা আওনাকে ব্যাকলিংক দিবে না।

আশা করি উপরে আলোচনা কৃত বিষয় গুলো বুঝতে পেরেছেন। এভাবে আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য ব্যাকলিংক নিতে পারবেন। টিউটোরিয়াল টি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনাদের বন্ধু দের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

admin

আমি সাগর। আমি একজন ব্লগার এবং ইউজার ইন্টারফেজ ডিজাইনার। আমি প্রতিনিয়ত চেষ্টা করি আমার ব্লগের মাধ্যমে নতুন নতুন তথ্য শেয়ার করতে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button