Telegram

টেলিগ্রাম কী? টেলিগ্রাম বট কী এবং দেখে নিন Gmail অফিসিয়াল টেলিগ্রাম বট!!!!

বর্তমানে কে না সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে বর্তমানে প্রত্যেকটি মানুষের প্রয়োজনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম খুব ভালো সহযোগিতা করতেছে। ফেসবুক হোয়াটসঅ্যাপ ইন্সটাগ্রাম এর পাশাপাশি টেলিগ্রাম হল একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। আমরা টেলিগ্রাম সম্পর্কে জানি আবার অনেকেই জানিনা। আমি এই পোস্টের মাধ্যমে টেলিগ্রাম কি এবং টেলিগ্রাম বট কি সাথে একটি টেলিগ্রাম গুগোল বট এএ সাথে পরিচয় করে দিব। যার মাধ্যমে আপনি জিমেইলের অফিশিয়াল কাজ গুলো আপনার টেলিগ্রাম বটে করতে পারবেন তাহলে আর দেরি না করে চলুন শুরু করি।

Telegram কী?

সহজ ভাষায় বলতে গেলে টেলিগ্রাম হল একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। ফেসবুক মেসেঞ্জার হোয়াটসঅ্যাপ ইমু ইনস্টাগ্রাম ইত্যাদি সোশ্যাল যোগাযোগ মাধ্যম এর মত একটি সোশ্যাল মাধ্যম ।যার মাধ্যমে আপনি চ্যাটিং থেকে শুরু করে ফাইল শেয়ারিং পর্যন্ত করতে পারবেন সাথে ভিডিও কল এবং অডিও কলের ফিচার তো থাকছেই। দিনে দিনে নানা কারণে টেলিগ্রাম খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠছে চলুন টেলিগ্রাম কি কারনে জনপ্রিয় হচ্ছে সেগুলো দেখে আসি।

টেলিগ্রাম জনপ্রিয় হওয়ার কারণ

টেলিগ্রামে অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোর মত ব্যবহারকারীর না থাকলেও খুব শীগ্রই এদের মত ব্যবহারকারী হবে। টেলিগ্রামে নানা ফিচার দিয়ে ভরা। এখানে রয়েছে ম্যাসেজিং থেকে শুরু করে ফাইল শেয়ারিং এর মত ফিচার। অনেকেই ফাইল শেয়ারিং একটি ঝামেলা মনে করে থাকেন তাদের জন্য খুব ভালো সুবিধা দিচ্ছে এবং এখানে নানা রকম ইন্টারফেসের ব্যবস্থা করা রয়েছে। ব্যবহারকারীরা তাদের ইচ্ছামতো ইন্টারফেস এবং কাস্টমাইজ করতে পারবে এবং এখানে রয়েছে নানা রকম অফিশিয়াল বট যার মাধ্যমে অফিসিয়াল কাজগুলো খুব খুব সহজেই করা যায়।

টেলিগ্রাম মেসেজিং

খুব কম নেটওয়ার্কেও ভালো ভাবে টেলিগ্রাম ম্যাসেজিং করা যায় এবং যে কোন ফোনে খুব সহজ একটি অ্যাপ ইন্সটল হয় এবং স্মুথলি চলে। আপনারা কম দামের মোবাইলেও এই অ্যাপ্লিকেশনটি খুব সহজেই চালাতে পারবেন। এখানে আপনারা অডিও এবং ভিডিও কলের ফিচার পাবেন এবং এইচডি কোয়ালিটি তে যে কোন অডিও এবং ভিডিও কল করতে পারবেন।

এখানে আপনি মেসেজিং করার সময় আরেকটি সুবিধা পেয়ে থাকবেন। সেটি হলো আপনি যখন একজনের সাথে মেসেজিং করবেন তখন যদি আপনার মেসেজে টাইপিং মিসটেক হয়ে থাকে তাহলে সেটি পুনরায় এডিট করতে পারবেন। এই ফিচারটি অ্যাড আছে টেলিগ্রাম মেসেজিং এ।এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো পুরাতন ম্যাসেজ আপনি ইডিট করতে পারবেন না সম্প্রতি যে কোন মেসেজ আপনি এডিট করতে পারবে।

ফাইল শেয়ারিং

আমাদের প্রতিনিয়ত জীবনে ফাইল শেয়ারিং করতে হয় নানা কারণে হয়তো অনেকে অফিসের কাজে ফাইল শেয়ার করে আবার অনেকেই ছোটখাটো কাজেও ফাইল শেয়ার করে।ফাইল শেয়ারিং অনেকেই ঝামেলার মনে করে। আপনি টেলিগ্রাম এর মাধ্যমে খুব সহজেই ফাইল শেয়ার করতে পারবেন। এবং এটি টেলিগ্রামের একটি গুরুত্বপূর্ণ ফিচার এবং আপনি এখানে 2 জিবি পর্যন্ত সাইজের ফাইল শেয়ার করতে পারবেন। খুব সহজেই যাকে পাঠাবেন তিনি এটি ডাউনলোড করে নিতে পারবে।

প্রাইভেসি এন্ড সিকিউরিটি

অন্যান্য মাধ্যম থেকে প্রাইভেট সিকিউরিটি দিক দিয়ে দেখলে টেলিগ্রাম কি ভালো পজিশনে দেখা যায়।টেলিগ্রাম সরাসরি ক্লায়েন্ট এনক্রিপশন ব্যবহার করে বার্তা পাঠানোয় কাজ করে। ফলে ব্যবহারকারীদের মাঝ থেকে বার্তা বা ফাইল হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

টেলিগ্রাম বট কি?

টেলিগ্রামে আলাদা একটি ফিচার বট যার মাধ্যমে অনেক কাজ খুব সহজেই করা যায় এটি সফটওয়্যার দিয়ে চলে এখানে মানুষের কোন প্রয়োজন নেই। এই টেলিগ্রাম বট দিয়ে আপনি খুব সহজেই অনুসন্ধান ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোডিং লিংক ইনফর্মেশন এবং অনেক কিছু করতে পারবেন। এখানে প্রায় হাজার হাজার বট রয়েছে অফিশিয়াল ভাবে কাজ করার জন্য। আজকে আমরা এই পোস্টে জিমেইল অফিশিয়াল বট এর সাথে আপনাদের কে পরিচিত করে দেবো।

জিমেইল অফিসিয়াল বট

টেলিগ্রামে রয়েছে অসংখ্য বট যার মাধ্যমে সম্পাদিত হয় হাজার হাজার কাজ সেরকমই একটি বট জিমেইল। যার মাধ্যমে আপনি জিমেইলের থাকা মেইল সেন্ড থেকে শুরু করে মেইল রিসিভ যেকোনো কিছু করতে পারবেন টেলিগ্রাম বট দিয়ে।

যেভাবে জিমেইল অফিসিয়াল টেলিগ্রাম বট চালূ করেবেন।

প্রথমে আপনাকে টেলিগ্রাম অ্যাপ টি আপনার ফোনে ইন্সটল থাকা লাগবে আপনি প্লে স্টোর থেকে সার্চ করে খুব সহজেই টেলিগ্রাম ডাউনলোড করতে পারবেন। খুব সহজেই আপনি একটি অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন টেলিগ্রামে এ্যাকাউন্ট খোলা হয়ে গেলে আপনি প্রথমে সার্চ বারে চলে যাবেন না নিচের লিংকে ক্লিক করুন। সার্চ বারে Gmail bot লিখলে নিচে একটি ভেরীফাইড জিমেইল বট করবে শো করবে। এবং সেখানে ক্লিক করুন।
Click here

নিচের স্ক্রীনশট এর মত দেখতে পারবেন। আপনি নিচে থাকা start বাটনে ক্লিক করুন


এবার authorize me নামে একটি বাটন দেখতে পারবেন আপনি সেখানে একটি ক্লিক করুন।

এবার একটি লিংক ওপেন হবে আপনার যেকোন ব্রাউজারে লিংকটি ওপেন করে নিন


এখানে আপনার ফোনে থাকা জিমেইল অ্যাকাউন্ট গুলো দেখাবে এবার যে জিমেইল টি দিয়া আপনি সকল কাজ টেলিগ্রামই করতে চান এই জিমেইল টির উপরে ক্লিক করুন

তারপর আপনি কি নিচে এসে allow বাটন বা অনুমতি দিন বাটন পাবেন সেখানে ক্লিক করুন।

এখন আপনার জি-মেইল অ্যাকাউন্ট টি টেলিগ্রাম বট এর সাথে কানেক্ট হয়ে গিয়েছে. এবার আপনি এখানে সকল মেইল পাবেন এবং সকল মেইল এর সবকিছু করতে পারবেন।

যে কাউকে মেইল পাঠাতে পারবেন এক কথা বলতে জিমেইল অ্যাপ এ যেসব সুবিধা গুলো পেয়ে থাকতেন সেগুলো এখানে পাবেন

তাহলে আজকে এই পর্যন্তই যদি টিউটোরিয়াল টি ভালো লেগে থাকে তাহলে আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না আর প্রতিনিয়ত আমাদের সাইটে ভিজিট করে আমাদেরকে সহযোগিতা করুন তাহলে আজকে এ পর্যন্তই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন আমাদের সঙ্গেই থাকুন।
আল্লাহ হাফেজ।

admin

আমি সাগর। আমি একজন ব্লগার এবং ইউজার ইন্টারফেজ ডিজাইনার। আমি প্রতিনিয়ত চেষ্টা করি আমার ব্লগের মাধ্যমে নতুন নতুন তথ্য শেয়ার করতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button